-->

ঘরে বসে ইনকাম মাসে ৫০ থেকে ৮০ হাজার টাকা সহজে-make money online at home secret 2021

অনলাইনে করুন ১০০% গ্যারেন্টি সহকারে-make money online 2021


ঘরে বসে ইনকাম মাসে ৫০ থেকে ৮০ হাজার টাকা সহজে-make money online at home secret 2021
make money online at home secret 2021

অনলাইনে আয়ের বেসিক পাঠ -১

অনলাইনে আয় এ ব্যাপার টা নিয়ে সবার মাঝে উত্তেজনা কাজ। কম বেশি সবাই এ কাজ করতে চাই  বিশেষ করে এখনকার জেনারেশন তো আগ্রহের কোনো শেষ নেই। 

যুবক তরুন তরুনী ছুটছে এর পেছনে। তবে কেউ সফলতা পাই আর কেউ পায় না। অনেক সময় সঠিক গাইড লাইনে অভাবে কাজ করতে পারে না।

আবার অনেকে কি কাজ করবে তা বুঝে উঠতে পারে এজন্য ছেড়ে দেয়। আবার অনেক সময় মনে সংকা থাকে অনলাইন থেকে কি সত্যি আয় করা যায়। এই সব কিছু নিয়ে আজকের পোস্ট টি

প্রশ্ন অনলাইন থেকে কি আদৌ আয় করা সম্ভব

উওর হ্যা অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা সম্ভব তবে আপনার সঠিক গাইড লাইন দরকার। তবে আপনি যদি ভেবে থাকে এডে ক্লিক করে করে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করবেন তাহলে অনলাইন থেকে ইনকামের চিন্তা ছেড়ে দিন।

তাহলে অনলাইনে ইনকাম কি

অনলাইন ইনকাম হচ্ছে ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে কাজ করে নিজের হাতে টাকা আনাকে ফ্রীল্যান্সিং বলে। তবে ফ্রীল্যান্সিং করার জন্য আপনার দুইটা জিনিসের দরকার পড়বে একটা ল্যাপটপ বা কম্পিউটার আরেক টি উচ্চ গতির নেট কানেকশন।{tocify} $title={Table of Contents}

কি কাজ করবো এখানে

এখানে আপনি বাস্তব জীবনের মতো কাজ করতে পারবেন মানে আমরা হয় চাকরি বা ব্যবসা করে থাকি সাধারণত এখানে ও রয়েছে সে ব্যবস্থা আপনি চাইলে এখানে চাকরি বা ব্যবসা করতে পারবেন।

ব্যবসা করার জন্য ই-কর্মাস সাইট তৈরী করে ব্যবসা করতে পারবেন আর চাকরি করলে বড় বড় মার্কেটপ্লেসে বায়ারের কাজ করে দিয়ে একটা ভালো এমাউন্টের টাকা ইনকাম করতে পারেন। তবে অনলাইন থেকে স্থানী ভাবে ইনকামের জন্য আপনকে ফ্রীল্যান্সিং শিখতে। ফ্রীল্যান্সিং কাজ গুলো শিখে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে হবে। ফ্রীল্যান্সিং কাজের মধ্যে রয়েছে ওয়েব ডিজাইন,গ্রাফিস্ক ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটং,ব্লগইন,ইউটিউব সহ নানা ধরনের কাজ শিখতে পারেন।

 

প্রশ্ন এতো গুলো কাজ সবই শিখতে হবে

উত্তর না আপনি যে বিষয় আগ্রহী সে বিষয় নিয়ে কাজ করতে পারেন। তবে এখানে আপনি যতো কাজ জানবেন ততো বেশি কাজ পাওয়ার সম্ভবনা থাকবে। আপনার কাজের গতির উপর নির্ভর করবে আপনার সফলতা।

এখানে সুবিধা কি

এখানে সব থেকে বড় সুবিধা হচ্ছে আপনি নিজ স্বাধীন ভাবে কাজ করতে পারবেন কোনো প্রকার চাপ থাকবে না আপনার উপর।

বিভিন্ন কাজ সম্পকে ধারনা দেয়া হলো

১.ওয়েব ডিজাইন

ওয়েব ডিজাইন বা ডেভলপমেন্ট করাঃ আপনি চাইলে বিভিন্ন কোডিং শিখতে পারেন যেমন php, java script, css,Python ইত্যাদি কোড শিখে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করতে পারেন। বর্তমান সময়ে ওয়েব ডিজাইন কাজের উপর ইনকাম বেশি হয়ে থাকে। যদি আপনার কোডিং সম্পর্কে ধারনা থাকে তবে আপনি ওয়েব ডিজাইন করতে পারেন।


২. গ্রাফিস্ক ডিজাইনঃ 

গ্রাফিস্ক ডিজাইনের কাজ করা জন্য প্রথমতো প্রয়োজন পড়বে একটা পিসির। তার পর দরকার হবে ডিজাইন করার সফটওয়্যারের এ জন্য আপনি বেছে নিতে পারেন photoshop বা Adode illustrator এগুলো দিয়ে আপনি লগো ডিজাইন,  ব্যানার ডিজাইন,  বিজনেস কার্ড সহ বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন মূলক কাজ করতে পারেন

৩.ডিজিটাল মার্কেটিংঃ

ডিজিটাল মাকেটিং এর মধ্যে অনেক কাজ রয়েছে। এখানে আপনি নিজে ব্যবসা করতে পারেন আবার অন্যকে ব্যবসায় সাহায্য করে ইনকাম করতে পারেন। এর মধ্যে রয়েছে সাইট তৈরী করা, অন্যর সাইটের প্রচার করা এক কথায় নিজের বা অন্য জনের কাজের প্রচার করাকে বুঝায়। আর প্রচার করার জন্য আপনি বেছে নিতে পারেন ফেসবুকের বড় বড় গ্রুপ, পেজের মাধ্যমে।

৪. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংঃ

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং টা হচ্ছে রেফার বা একজন ব্যক্তি অন্য আরেক ব্যক্তি সাহায্য কোনো জিনিস কেনা। যেমন ধরুন আপনার বন্ধু একটা বই কিনবে সে আপনাকে বললো বইটা কিনে দিতে। আপনি আপনার বন্ধুকে আপনার পরিচিত দোকান থেকে বইটা কিনে দিলেন এ জন্য আপনি দোকান দারের কাছ থেকে কিছু কমিশন পেলেন এইটাকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বলে।

৫. ইউটিউব ইন

ইউটিউব হচ্ছে মূলত ভিডিও রিলেটেড প্ল্যাটফর্ম। এখানে আপনি একটা ভিডিও বানিয়ে সেটাকে এডিট করে ইউটিউবে পাবলিশ করতে। আপনার ভিউজ সাবস্ক্রাইবার ওয়াচ টাইম এর ওপর ইনকাম আসবে। হ্যা এ জন্য আপনাকে গুগর এডসেন্স জন্য এপ্লাই করতে হবে এপ্রুভ হয়ে গেলে আপনি এড বসিয়ে ইনকাম করতে পারবেন

৬. ফেসবুক মার্কেটিং

আপনি চাইলে ফেসবুকের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রোডাক্ট এর রিভিউ করে টাকা ইনকাম করতে। এজন্য আপনার একটা ফেসবুক গ্রুপ বা পেজ থাকা লাগবে। আপনি চাইলে বড় বড় পেজ বা গ্রুপে জয়েন হয়েও  শেয়ার করে ইনকাম করতে।

ফ্রিল্যান্সিং টাকা কিভাবে পাবো

বায়ারের কাজ কমপ্লিট হবার পর সে আপনার একাউন্টে ডলার টান্সফার করে দিবে। যেমন ধরুন paypal, Skrill,Poyoneer, Neteller,Perfect Money এগুলোর মাধ্যমে আপনি পেমেন্ট নিয়ে সে টাকা আপনার ব্যাংকে টান্সফার করে নিতে।

শেষ কিছু কথা

অনেকে বলে থাকেন এন্ড্রয়েড ফোন দিয়ে কি কাজ করা যাবে উত্তরটা হচ্ছে না আপনি বড় বড় মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে গেলে আপনার একটা ল্যাপটপ বা পিসি থাকা দরকার। তবে ছোটখাটো একটা আরনিং এর  জন্য আপনার এন্ড্রয়েড ফোন দিয়ে করতে পারবেন।

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post